ঢাকা, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮ আপডেট : ৪ মিনিট আগে

গৃহকর্মীকে ধর্ষণ-মাথা ন্যাড়া, আটক ১

  সাভার প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৭  
আপডেট :
 ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০১

গৃহকর্মীকে ধর্ষণ-মাথা ন্যাড়া, আটক ১
আটক
সাভার প্রতিনিধি

সাভারের আশুলিয়ায় বাসাবাড়িতে কাজ করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর নির্যাতন ও চুল কেটে নেয়ার অভিযোগ তুলেছেন এক গৃহকর্মী। এ ঘটনায় দেলোয়ার হোসেন নামের এক জনকে আটক করেছে পুলিশ। দেলোয়ারের স্ত্রী লিপিকে আটকের জন্য অভিজান চলছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাত ১০ টার দিকে আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

গত মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের গাজীরচট এলাকার সোনিয়া মার্কেটের মালিকের বাড়িতে কাজ করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী। অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী লিপি বেগম আশুলিয়া থানার ধামসোনা ইউনিয়নের গাজীরচট সোনিয়া মার্কেট এলাকার বাসিন্দা।

ভুক্তভোগী নারী জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার দুপুরে কাজের জন্য তাকে ডেকে পাঠান দেলোয়ার ও লিপি দম্পতি। বাসার মেঝে ধোয়া-মোছার করার সময় বাড়ির মালিক দেলোয়ার ফাঁকা বাসায় ভুক্তভোগীর মুখ চেপে ধরে তাকে ধর্ষণ করেন। হঠাৎ লিপি বেগম সেখানে উপস্থিত হলে উল্টো ভুক্তভোগীকেই চর-থাপ্পর মারতে থাকেন৷ তার কোন কথাই শোনেনি মালিকের স্ত্রী। পরে লিপি ও তার দেবরের স্ত্রী তাকে ওড়না দিয়ে বেঁধে ফেলেন। দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এ অবস্থায় তাকে আটকে রেখে লাঠি দিয়ে বেধরক পিটিয়ে জখম করা হয়। প্রথমে কেঁচি ও পরে ব্লেড দিয়ে তার মাথার চুল ন্যাড়া করে দেওয়া হয়। এক পর্যায়ে বাড়ির মালিকের এক স্বজন ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে রিকশাযোগে বাড়িতে পাঠায়৷ এ সময় তিনি চিকিৎসার জন্য ভুক্তভোগীর হাতে আড়াই হাজার টাকা দিতে চাইলেও সে টাকা কেড়ে নেন লিপি বেগম।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দেলোয়ার বলেন, ‘সেদিন এক নারী কাজ করতে আসছিলো। আমি তখন নিচে ছিলাম। আমার বউ আমারে খুব সন্দেহ করে। ওই নারীকে চিকিৎসার জন্য ৮ হাজার টাকা দেয়া হইছে। কইছি, লাগলে আরও দিমু। তবে ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।’

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক এসআই ইউনুস জানান, এ ঘটনায় তিনজনের নামে মামলা হয়েছে। এক নম্বর আসামি দেলোয়ার গ্রেপ্তার হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত