ঢাকা, রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ আপডেট : ১৯ মিনিট আগে

ত্বকী হত্যার ১০৬ মাসে আলোক প্রজ্জ্বলন, বিচার দাবি

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি ২০২২, ২১:৫৩

ত্বকী হত্যার ১০৬ মাসে আলোক প্রজ্জ্বলন, বিচার দাবি
ছবি- প্রতিনিধি
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

মেধাবী কিশোর তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যা ও বিচারহীনতার ১০৬ মাস উপলক্ষে শনিবার সন্ধ্যায় আলী আহাম্মদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তন প্রাঙ্গণে আলোক প্রজ্জ্বলনের আয়োজন করেছে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট।

সংগঠনের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব হালিম আজাদ, যুগ্ম আহ্বায়ক দৈনিক খবরের পাতার সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান মাসুম, খেলাঘরের জেলা সভাপতি রথীন চক্রবর্তী, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি জিয়াউল ইসলাম কাজল, প্রদীপ ঘোষ বাবু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনি সুপান্থ, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল হক দীপু, বাসদ জেলা সমন্বয়ক নিখিল দাস, ন্যাপ জেলা সাধারণ সম্পাদক আওলাদ হোসেন ও ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সভাপতি হাফিজুর রহমান।

রফিউর রাব্বি বলেন, ত্বকী হত্যার ৯ বছর হতে চললো অথচ সরকার অঘোষিত এক ইন্ডেমনিটির মাধ্যমে এর বিচার বন্ধ করে রেখেছে। র‍্যাবের তৈরি করে রাখা অভিযোগপত্র আটকে রাখা হয়েছে। র‍্যাব সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছে, নারায়ণগঞ্জের ওসমান পরিবার তাদেরই টর্চার সেলে ১১ জন মিলে ত্বকীকে হত্যা করেছে। এই ঘাতকরা এখন বীরদর্পে ঘুড়ে বেড়াচ্ছে। প্রশাসন-সরকার তাদের নিরাপত্তা দিচ্ছে। দেশে বিচারহীনতার একটি নগ্ন উদাহরণ এটি। ত্বকী হত্যার আগে এই ওসমান পরিবার এখানে বহু হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে, কিন্তু ত্বকী হত্যার পরে সারাদেশের মানুষ জেনেছে এটি একটি খুনি পরিবার।

তিনি আরও বলেন, হত্যা, সন্ত্রাস, চাঁদাজাজি, মাদক ব্যবসা, দখলদারিত্ব বজায় রাখতে তারা লাশের রাজনীতি করে। প্রতিপক্ষকে দমাতে তারা খুন-হত্যা করে ভয়ের পরিবেশ তৈরি করে রাখে। এই ওসমান পরিবারের কোনো নীতি বা আদর্শ নেই। তারা নিজেদের পরিবারের স্বার্থকেই আদর্শ মনে করে। নিজেদের স্বার্থে তারা জামায়াত-বিএনপি, হেফাজত এমনকি বঙ্গবন্ধুর খুনিদেরকেও বন্ধু বানায়। তারা নির্বাচনে যাদের সমর্থন দেয় জনগণ তাদের প্রত্যাখান করে, ভোট দেয় না। তাদের জিততে হলে জাল-জালিয়াতি করে, কেন্দ্র দখল করে জিততে হয়। জনগণের ভোটে ওসমান পরিবারের নিজেদেরই যেখানে কখনো বিজয়ী হওয়ার নজির নাই, জাল-জালিয়াতি করে বিভিন্ন সময় জিততে হয়েছে, সেখানে তাদের সমর্থিতদের মানুষ ভোট দেবে কেন?

রফিউর রাব্বি বলেন, সরকারের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে শামীম ওসমান যেন সরকারের ভেতরে আরেক সরকার। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনি এই ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইনকে থামান, ঘাতকদের আর আশ্রয়-প্রশ্রয় দেবেন না, ত্বকী হত্যার বিচারের নির্দেশ দেন।

মাহাবুবুর রহমান মাসুম বলেন, ত্বকীর ঘাতক ওসমান পরিবার এখনো ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তারা নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করতে চায়। আজকে বিএনপি-জামায়াতের প্রতিনিধিকে নিয়ে সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরুদ্ধে তারা নির্বাচনের পরিবেশকে কলুষিত করতে চাচ্ছে। তিনি বলেন, আইভীর বিরুদ্ধে আজ যিনি জনতার প্রার্থী হয়েছেন তাকে বিগত চল্লিশ বছরে কখনো দুঃখ-দুর্দশায়, সমস্যা-সংকটে নারায়ণগঞ্জের মানুষ পাশে দেখেনি, এমনকি ত্বকীসহ কোন হত্যার পরেও তিনি কোন টু-শব্দটি পর্যন্ত করেননি।

তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, আপনি কোন একটি পরিবারের প্রধানমন্ত্রী নন, ষোল কোটি মানুষের প্রধানমন্ত্রী, আপনি নারায়ণগঞ্জের মানুষের পাশে দাঁড়ান, নারায়ণগঞ্জের সকল হত্যার বিচার করেন।

হালিম আজাদ বলেন, আট বছর আগে ত্বকী হত্যার তদন্ত শেষ হয়ে অভিযোগপত্র তৈরি করে রাখার পরেও তা আদালতে পেশ করা হয় নাই। প্রধানমন্ত্রীর অনিচ্ছার কারণে এ হত্যার বিচার বন্ধ করে রাখা হয়েছে। ঘাতকরা চিহ্নিত হবার পরেও প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। প্রশাসন তাদের নিরাপত্তা দিচ্ছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন আপনাকে ত্বকী হত্যার বিচার করতে হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত