ঢাকা, শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮ আপডেট : ৯ মিনিট আগে

‘আইভীকে ঠেকাতে রাজনীতির গডফাদাররা ঐক্যবদ্ধ’

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ২০:০১  
আপডেট :
 ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ২০:১২

‘আইভীকে ঠেকাতে রাজনীতির গডফাদাররা ঐক্যবদ্ধ’
ছবি- সংগৃহীত
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রতিবাদী আইভীকে ঠেকাতে রাজনীতির গডফাদাররা ঐক্যবদ্ধ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান।

শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ নগরীর ২ নং রেলগেইট এলাকায় আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর পথসভায় এ অভিযোগ করেন তিনি। পথসভায় উপস্থিত ছিলেন আইভীও।

তিনি বলেন, ত্বকী হত্যা, সাত খুনের মত ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে দিবেন না বলে আইভী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। পাশাপাশি চাঁদাবাজ ও নতুন কোনো গডফাদারের যাতে জন্ম না হয় সেজন্যে প্রয়োজন হলে আইভী নারায়ণগেঞ্জর মানুষের জন্য তার জীবন দিবে। তবু এই নারায়ণগঞ্জকে সন্ত্রাসের নগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে দিবেন না। আর এই জন্যই সকল অপশক্তি, নৈরাজ্যবাদীরা, সকল রাজনীতির গডফাদাররা ঐক্যবদ্ধ হয়েছে আইভীর জয়যাত্রা বন্ধ করতে। কিন্তু তারা জানে না আইভীকে রোধ করবার শক্তি এই নারায়ণগঞ্জে নাই।

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, নেত্রী (শেখ হাসিনা) বলেছেন তোমরা নারায়ণগঞ্জবাসীকে বলে দাও, আমি আমার আইভীকে তাদের সামনে পাঠালাম তারা শুধু ভোট দিয়ে আইভীকে বিজয়ী করুক, নারায়ণগঞ্জের সকল উন্নয়নের দায়িত্ব আমি নিজে গ্রহণ করবো। আজকের এই সমাবেশ দেখে মনে হচ্ছে আগামী ১৬ তারিখের নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত।

স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকারের উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের একজন প্রার্থী আছে হাতি মার্কার। প্রথমে তিনি বললেন, তিনি বিএনপির প্রার্থী। পরে বললেন না আমি বিএনপির প্রার্থী না, জনগণের প্রার্থী। আমি আজ বলে দিলাম আগামী ১৬ই তারিখ বনের হাতি বনে ফিরে যাবে, আর নৌকার বিজয় হবে।

মহানগরের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা ও সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাতের সঞ্চালনায় পথসভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, এসএম কামাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, জাতীয় পরিষদের সদস্য আনিসুর রহমান দিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল।

উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, সদস্য সানজিদা খানম, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন নিখিল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আসাদুজ্জামান, আদিনাথ বসু, আব্দুল কাদির, আরজু রহমান ভুঁইয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রানু খন্দকার, যুবলীগের মহানগরের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভুঁইয়া সাজনু, সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ আলী রেজা উজ্জ্বল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের মহানগরের সভাপতি জুয়েল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আশারাফুল ইসমাইল রাফেল, বিলপ্ত মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ, সাধারণ সম্পাদক হাসনাত রহমান বিন্দু প্রমুখ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমজে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত