ঢাকা, রোববার, ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে
ব্রেকিং নিউজ
  •   দুর্নীতি মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হাজী সেলিমের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

বন বিভাগের হেডম্যানকে হত্যার মিশন ৩০ মিনিটেই শেষ!

  কক্সবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৪১

বন বিভাগের হেডম্যানকে হত্যার মিশন ৩০ মিনিটেই শেষ!
কক্সবাজার প্রতিনিধি

কক্সবাজারের রামুর ব্যাঙডেবা গ্রামের বন বিভাগের হেডম্যান আলী আহমদকে হত্যার মিশন ৩০ মিনিটের মধ্যেই শেষ করে দুর্বৃত্তরা। পূর্ব পরিকল্পনা অনুসারে হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয় ১২ থেকে ১৫ জন। পরে সেটিকে ডাকাতির ঘটনা হিসেবে সাজানোর চেষ্টা করা হয়। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত সাজ্জাদ হোসেনসহ দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। অপরজনের নাম সানাউল্লাহ।

মঙ্গলবার দুপুরে র‍্যাব আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন র‌্যাব-১৫ এর উপ-অধিনায়ক তানভীর হাসান।

তিনি জানান, আলী আহাম্মদ দীর্ঘ ২৮ বছর যাবত বনবিভাগের হেডম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তিনি নেতৃত্ব দিতেন রামুর ব্যাঙডেবা গ্রামের মসজিদ কমিটি, স্থানীয় স্কুল কমিটিসহ সামাজিক কর্মকাণ্ডে। বনবিভাগের গাছ চুরি ও জায়গা দখল ঠেকাতে তার কঠোর প্রচেষ্টার কারণে শত্রুতা হয় অনেকের সাথে। সেই শত্রুতার জের গত ১৬ জানুয়ারি দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয় আলী আহমদকে। আলোচিত এ হত্যার ঘটনায় রামু থানায় ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পরিবার।

পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ঘটনাটির ছায়া তদন্ত শুরু করে। সর্বশেষ মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত সাজ্জাদ হোসেনসহ দুই জনকে বান্দরবানের আলীকদম এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। ২ জনের বাড়ি ব্যাঙডেবা গ্রামে।

তানভীর হাসান জানান, নির্মম এই হত্যাকাণ্ডকে ডাকাতির ঘটনা হিসেবে সাজাতে ঘটনার রাতে বনবিট অফিসে গিয়ে স্থানীয় ৫ জন পাহারাদারকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে টয়লেটে আটকে রাখে দুর্বৃত্তরা। বিট কর্মকর্তা, মালির থাকার ঘর ও স্টাফ রুমের দরজায় বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। এরপর আলী আহমদের ঘরে গিয়ে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলাপাতাড়ি কোপায় এবং আলমারী ভেঙে স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা লুট করে।

এ ঘটনায় জড়িতদের অপরাপর আসামীদের গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন নিহতের ছোট ভাই মনজুর আলম। তিনি বলেন, আমার ভাই বন রক্ষা করতে গিয়ে শত্রুতার বলি হয়েছে। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে চিহ্নিত দুর্বৃত্তরা। আমি এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

আলোচিত এ হত্যার ঘটনায় এখনও মামলার এজাহারভুক্ত ৩ আসামী পলাতক রয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা তানভির হাসান জানান, আসামী সাজ্জাদ হোসেন ও মো. সানাউল্লাহ গ্রেপ্তার এড়াতে বান্দরবানের আলীকদমে এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপনে ছিল-এমন খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়। গ্রেপ্তার হওয়া দুই জনকে জিজ্ঞাসাবাদে পলাতকদের সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছে র‌্যাব। শিগগিরই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত