মায়ের মাথায় গুলি করে পালিয়ে গেলো সাবেক মেয়রের ছেলে

প্রকাশ : ১৬ আগস্ট ২০২২, ১৭:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

  চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রতীকী ছবি

চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভার সাবেক মেয়র শামসুল আলমের স্ত্রী জেসমিন আক্তার তার সন্তান মাইনুদ্দীন মোহাম্মদ মাঈনুরের গুলিতে নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত জেসমিন আক্তার জাতীয় পার্টির (এরশাদ) কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও পটিয়া পৌরসভার সাবেক প্রথম মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত শামসুল আলম মাস্টারের স্ত্রী।

অন্যদিকে ৩৩ বছর বয়সী ঘাতক মাঈনুর চট্টগ্রামের চকবাজার এলাকায় থাকেন। তিনি বিবাহিত। যুবলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, বাবার মৃত্যুর পর জায়গা-সম্পত্তি ও ব্যাংক একাউন্টের টাকা নিজের নামে করে নেয়ার বিষয়ে মায়ের সাথে বাকবিতণ্ডা হয় মাইনুদ্দীন মোহাম্মদ মাঈনুরের। এ নিয়ে আজ মঙ্গলবার বাদানুবাদের এক পর্যায়ে মা জেসমিন আক্তারের মাথায় গুলি করে পালিয়ে যান মাইনুদ্দীন।

গুরুতর আহত অবস্থায় জেসমিনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে পটিয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে থেকে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। চমেক হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম মজুমদার। তিনি বলেন, পটিয়া পৌর সদরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সবজাপাড়ায় ছেলে মাঈনুদ্দীনের গুলিতে নিহত হয়েছেন মা জেসমিন আক্তার। খবর পেয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করেছি। বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ১০ রাউন্ড গুলি ও একটি এয়ার গান উদ্ধার করা হয়েছে। তবে মাঈনুদ্দীন পালিয়ে গেছে। তাকে ধরতে অভিযান চলছে।

গত ১৩ জুলাই বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান জাতীয় পার্টির (এরশাদ) কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও পটিয়া পৌরসভার সাবেক প্রথম মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুল আলম মাস্টার। তার বিপুল সম্পত্তি রয়েছে। তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে। এর মধ্যে মেয়ে অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে