ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৩ মিনিট আগে
শিরোনাম

মাদ্রাসায় নিয়োগ নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

  লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:১৪

মাদ্রাসায় নিয়োগ নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
ভবানীগঞ্জ চরমনসা ইসমাইল মেমোরিয়াল দাখিল মাদ্রাসায় সংবাদ সম্মেলন। ছবি: প্রতিনিধি
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুরে একটি মাদ্রাসায় ৩টি পদে নিয়োগ নিয়ে বিভিন্ন অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ চরমনসা ইসমাইল মেমোরিয়াল দাখিল মাদ্রাসার সুপারের কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মামুনুর রশিদ ভূঁইয়া, ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎসাহী সদস্য সাইফুল হাসান রনি, মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মো. ইউছুফ, সুপার মাকছুদুর রহমান এবং পরিচালনা কমিটির সদস্য মনিরুজ্জামানসহ অনেকে।

সংবাদ সম্মেলনে ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল হাসান রনি জানিয়েছেন, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে একজন প্রার্থীও পরীক্ষায় পাশ করেনি। এজন্য এ পদে পুনরায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আহবান করা হবে।

আয়া পদে কুলুসুম বেগম নামে একজনকে নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি পরীক্ষায় দ্বিতীয় হয়েছেন। তাকে নিয়োগ দেওয়ার সুযোগ নেই। নৈশপ্রহরী পদে প্রতিষ্ঠানের অভিভাবক সদস্য মানিক ডাক্তারের ভাগিনা সাদ্দাম হোসেন প্রার্থী ছিলেন। কিন্তু তিনি পাশ করেননি। তবুও তাকে মনোনীত করার জন্য মানিক চাপ সৃষ্টি করে। এতে রাজি না হওয়ায় তারা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়। অভিভাবক সদস্যসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সামনেই পুনরায় পরীক্ষার খাতা যাচাই করা হয়েছে। এতে কোন ধরণের অনিয়ম দেখা যায়নি।

মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মোঃ ইউছুফ বলেন, ৩ টি নিয়োগ পদেই একাধিক লোক আবেদন করেছেন। বিধিমালা অনুযায়ী ডিজি প্রতিনিধি, মাদ্রাসার সুপার, পরিচালনা কমিটির সভঅপতি ও অভিভাবক সদস্যরা নিয়োগ কমিটিতে ছিলেন।

তাদের উপস্থিতিতেই লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তির্ণদের নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হয়। কিন্তু একটি কুচক্রী মহল স্বার্থ হাসিলের জন্য মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালায়।

মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মামুনুর রশিদ ভূঁইয়া বলেন, নিয়োগ নিয়ে কোন ধরণের লেনদেন করা হয়নি। সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার ভিত্তিতে পরীক্ষা নিয়ে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হয়। কিন্তু নৈশ প্রহরী পদে সাদ্দাম নামে এক প্রার্থী অনুত্তীর্ণ হয়ে পরে অপ-প্রচার চালিয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/নুসরাত/জিকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত