ফরিদপুরে গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ

প্রকাশ : ২৮ মে ২০২৩, ০০:০০ | অনলাইন সংস্করণ

  ফরিদপুর প্রতিনিধি

ছবি: প্রতীকী

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় একটি আকাশমণি গাছে থেকে সাজ্জাতুল ইসলাম সাগর (২০) নামে এক যুবকের ওড়না পেঁচানো ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  শনিবার বিকাল ৫ টার দিকে উপজেলার  নুরুল্লাহগঞ্জ ইউনিয়নের বাররা গ্রাম থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত যুবক ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার উথুরার জাটিয়া গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে।

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার নুরুল্লাহগঞ্জ ইউনিয়নের বাররা গ্রাম থেকে রহস্যজনক এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে ভাংগা থানা পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ওই গ্রামের বাইজিদ কাজির পুকুরপাড় থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেন। নিহত যুবকের নাম সাজ্জাতুল ইসলাম সাগর (২০) পিতা-ইদ্রিস আলী, বাড়ী ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার উথুরা বাজার এলাকার জাটিয়া গ্রামে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুরে ওই যুবক একটি পুকুর পাড়ের আকাশমনি গাছের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুলতে থাকে।  স্থানীয়রা বিকেল পাঁচটার দিকে যুবককে ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ভাঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করেন। যুবকের ফুলপ্যান্ট পরিহিত পকেট থেকে একটি মানিব্যাগ জব্দ করা হয়। পরে মানিব্যাগের ভিতরে একটি ভোটার আইডি কার্ড দেখে নাম ঠিকানা সনাক্ত করা হয়। তবে, এটি হত্যা না-কি আত্মহত্যা তা নিয়ে এলাকায় সংশয় দেখা দিয়েছে। 

ভাঙ্গা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক  তাহসিন জানান, ময়মনসিংহের যুবক শতশত কিলোমিটার দূর থেকে এখানে এসে কিভাবে এমনটা ঘটলো সেই রহস্য এখনও জানা যায়নি। তবে প্রাথমিকভাবে মরদেহ দেখে আত্মহত্যা করেছেন বলে মনে হচ্ছে। তবে যুবকের মরদেহ সুরতহাল করতে মর্গে প্রেরণ করেছি। রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে। 

ভাঙ্গা থানার ওসি মো. জিয়ারুল ইসলাম বলেন, নিহত যুবক ওই এলাকায় তার শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন। মোবাইল দেখা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। পরে সকালে স্বামী সাজ্জাতুল ইসলাম সাগর ঘর থেকে বেড়িয়ে যান। অতঃপর এ ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি জানান। 

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএ