দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে একমাত্র দুর্নীতিমুক্ত সংস্থা বললেন তাপস

প্রকাশ : ১৬ মে ২০২২, ১৯:৩৯ | অনলাইন সংস্করণ

  জার্নাল ডেস্ক

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে বাংলাদেশের মধ্যে একমাত্র দুর্নীতিমুক্ত সংস্থা হিসেবে দাবি করেছেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। সোমবার দুপুরে মেয়রের দায়িত্ব পালনের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। 

তিনি বলেন, সবাইকে চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি, বাংলাদেশের মধ্যে যদি একমাত্র দুর্নীতিমুক্ত সংস্থা হিসেবে ধরা হয়, তবে সেটা হবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন।

দক্ষিণ সিটির বাসিন্দারা এখন স্বাচ্ছন্দ্যে ও সুষ্ঠু পরিবেশে সেবা গ্রহণ করছেন, এমন মন্তব্য করে মেয়র বলেন, দায়িত্বভার গ্রহণের পর অনেক জায়গা থেকে বিভিন্ন বার্তা পেয়েছেন। বিভিন্ন অভিযোগ পেয়েছেন। দিন দিন এমন অভিযোগের সংখ্যা কমে আসছে। এরপরও দুর্নীতি এমন একটি ব্যাধি, যা সম্পূর্ণরূপে নির্মূল করা অসম্ভব কাজ। কিন্তু প্রশাসনিক কঠোরতা, এ ব্যাপারে আপসহীন পরিবেশ এবং যখন যে অভিযোগ এসেছে, তা সঙ্গে সঙ্গে নিষ্পত্তি করা এবং পদক্ষেপ নেয়ার মাধ্যমে তারা এমন পরিবেশ সৃষ্টি করতে পেরেছেন।

দক্ষিণ সিটির হিসাবে বর্তমানে আড়াই লাখ ব্যক্তি ব্যবসার অনুমতি বা ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসা করছেন জানিয়ে মেয়র বলেন, তবে বিভিন্ন জরিপে তারা দেখেছেন, ছয় লাখের বেশি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ঢাকা শহরে ব্যবসা–বাণিজ্য করতে হলে অবশ্যই বাণিজ্য–অনুমতি নিতে হবে। বাণিজ্য–অনুমতি না নিলে ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না। আগামী ১ জুলাই থেকে এ ব্যাপারে আরও কঠোর হবেন তিনি। ছোট হোক বড় হোক, ঢাকা শহরে ট্রেড লাইসেন্স ছাড়া ব্যবসা করতে দেয়া হবে না। 

এসময় অনুমতি না নিলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে বাধ্য হবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

আসন্ন বর্ষা মৌসুমে রাস্তা থেকে বৃষ্টির পানি আধা ঘণ্টার মধ্যে সরিয়ে নগরবাসীকে জলাবদ্ধতার ভোগান্তি থেকে মুক্ত করা হবে বলে জানিয়ে তাপস বলেন, গত বর্ষা মৌসুমে এক ঘণ্টার মধ্যে রাস্তা থেকে বৃষ্টি পানি নামিয়ে জলাবদ্ধতা নিরসন করেছেন। এবার আধা ঘণ্টায় সড়ক থেকে পানি সরাবেন। সেভাবেই তাদের কার্যক্রম সাজানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মেয়র তাপস আরও বলেন, ঢাকায় যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়, সেই পানি ধারণ করার ক্ষমতা এই শহরের নেই। তাই বৃষ্টি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কিছু জায়গায় হয়তোবা পানি জমতে পারে। সেটা যাতে দ্রুত নিষ্কাশিত হয়, সেই লক্ষ্যে সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বিভিন্নভাবে কাজ করবেন। যাতে আধা ঘণ্টার বেশি পানি জমে না থাকে। সেই দৃঢ়তা নিয়ে তারা কর্মপরিকল্পনা সাজিয়েছেন। এতে সফল হবেন বলে আশাবাদী মেয়র।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা দক্ষিণ সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, সচিব আকরামুজ্জামান, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হক, প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যানজট নিরসনে রাত ৮টার পর দোকান বন্ধ রাখতে চান তাপস

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএম