ঢাকা, শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ আপডেট : ৪২ মিনিট আগে

শাবিপ্রবি ভিসির পদত্যাগ চেয়ে ঢাবিতে সমাবেশ

  ঢাবি প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:৩৩

শাবিপ্রবি ভিসির পদত্যাগ চেয়ে ঢাবিতে সমাবেশ
ছবি: প্রতিনিধি
ঢাবি প্রতিনিধি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ভিসির পদত্যাগ ও শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে প্রতিবাদী সমাবেশ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী। রোববার বিকাল সোয়া ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

‘সাস্টের পাশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারে পরিচালিত অবস্থান কর্মসূচিতে আন্দোলনকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে সংহতি প্রকাশ করেন। তারা শাবিপ্রবি উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি জানান।

সমাবেশে নৃত্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী লাবনী বন্যা বলেন, ‘আমরা বিগত সময়ে দেখেছি হলের অসুবিধা নিয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করেছে। কিন্তু কোনোদিনই এগুলোর সমাধান হয়নি। কারণ প্রশাসন জানে কান টানলে মাথা আসে। নিজেদের অন্যান্য অপকর্ম সামনে আসবে বলে তারা এ ধরণের আন্দোলন এড়িয়ে চলেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এরকম মানুষদের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক দায়িত্বে দেখতে চাই না। আমরা শাবিপ্রবির আন্দোলনের সাথে সংহতি জানাই এবং যৌক্তিক কারণে ভিসির পদত্যাগ দাবি করছি।’

তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের আকিফ আহমেদ বলেন, ‘সাস্টে কী হচ্ছে, কী কারণে এই অবস্থা আপনারা সব জানেন। আমরা যারা ঢাবিতে পড়ি আমরাও আমাদের প্রতি অসহযোগিতামূলক আচরণ দেখতে পাই। বাংলাদেশের প্রতিটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের সাথে শিক্ষার্থীদের সম্পর্ক শাবিপ্রবিরই প্রতিচ্ছবি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের ভিসি-প্রক্টররা আমাদের অভিভাবক। শিক্ষার্থীরা কষ্ট করে হলে থাকে। তাদের গায়ে পুলিশ ‌কিংবা অন্য কোনো মাতদর্শের ছাত্রসংগঠন আঘাত করলে তার বিচার করার দায়িত্ব ভিসির। যদি তিনি সেটি পালন করতে না পারেন তবে তার সরে যাওয়া উচিত। আমরা চাই প্রত্যেকটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিরা ‌আমাদের অভিভাবকের মতো দায়িত্ব পালন করুক।’

বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের শিক্ষার্থী উমামা ফাতেমা বলেন, ‘একটা বিষয় বলতে হয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বলেন, ওখানকার শিক্ষার্থীরারা তাদের নিজ নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হতে পারেন না। দেখা যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সরকারিভাবে ওখানকার শিক্ষক-ভিসি নিযুক্ত হন। তারা কখনো ওখানে ক্লাস করেননি। তাই তাদের সাথে শিক্ষার্থীদের কোনো ভালো সম্পর্ক থাকে না।’

তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে এমন সম্পর্কহীন মানুষদের প্রশাসনিক দায়িত্বে নিয়োগ দেয়া হয় বলেই শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে সংহতি জানানোর মতো কোনো শিক্ষক খুঁজে পাওয়া যায় না। আমরা এমন অনিয়মগুলোর প্রতিবাদ জানাই। শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থেকে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে। তারা যে এখনো পর্যন্ত ঐকবদ্ধ হয়ে অনশন-আন্দোলন করছেন, আমরা যাতে সেখান থেকে আমাদের দুঃসময়ে আন্দোলনের শিক্ষা নিতে পারি।’

সমাবেশে শিক্ষার্থীবান্ধব শাবিপ্রবি, শিক্ষার্থীবান্ধব ঢাবি ও মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার দাবি জানান।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত