ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯ আপডেট : ১৪ মিনিট আগে

প্রতিদানে আমি শুধু ভালোবাসাটাই দিতে জানি, পিঠ দেখাতে পারি না: অপূর্ব

  ইমরুল নূর

প্রকাশ : ০৮ জুন ২০২২, ১৮:০৯  
আপডেট :
 ০৮ জুন ২০২২, ১৮:১৯

প্রতিদানে আমি শুধু ভালোবাসাটাই দিতে জানি, পিঠ দেখাতে পারি না: অপূর্ব
ইমরুল নূর

বরাবরের মত গেল ঈদেও দিয়ে দর্শক মাতিয়েছেন ছোট পর্দার বড় তারকা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। রোমান্টিকতার বলয় ভেঙে এবার বেশকিছু নাটকেই তাকে দেখা গিয়েছে একটু অন্যরকম চরিত্রে। যদিও তিনি নিজেকে রোমান্টিক ইমেজেই প্রতিষ্ঠিত করেছেন গেল এক যুগে, তবে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করছেন ভিন্ন ইমেজে। বিরতি কাটিয়ে গেল সোমবার শুটিংয়ে ফিরেছেন নাটকের এই ‘বড় ছেলে’। একটি নাটকের শুটিং শেষ করে আজকে যোগ দিয়েছেন আরেকটিতে। এরমধ্যেই জানা গেলো, অপূর্ব অভিনীত ৫০টি নাটক কোটি ভিউয়ের মাইলফলক ছুঁয়েছে, যা রীতিমত রেকর্ড। নতুন অর্জন এবং আসন্ন ঈদের কাজ; সবকিছু নিয়েই কথা হয় এই তারকার সঙ্গে। সেই আলাপচারিতার চুম্বকাংশ পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

প্রথম অভিনয়শিল্পী হিসেবে অনন্য মাইলফলক অর্জন করেছেন। প্রথম কোটি ভিউয়ের প্রচলন আপনিই শুরু করেছিলেন, সেই ধারাবাহিকতায় এবার হাফ সেঞ্চুরি হাঁকালেন। কেমন ভালো লাগা কাজ করছে?

অপূর্ব: প্রথম ১ কোটি ভিউ, প্রথম হাফ সেঞ্চুরি কোটি ভিউয়ের, প্রথম সেঞ্চুরি ৫ মিলিয়নের; এই সবকিছুর প্রথম বা শুরুটা আমি করতে পেরেছি; এটা বেশ ভালো লাগার। সব প্রথমের অনুভূতিটা কিন্তু আসলেই অন্যরকম ভালো লাগার হয়। আমি খুবই আনন্দিত। আমার নিজেকে আসলে খুব সৌভাগ্যবান মনে হয়, সব প্রথমের মধ্যেই আমি আছি। আর এটার পেছনে রহস্যের কিছু নেই, পুরোটাই আমার দর্শকদের জন্য। তারাই ভালোবেসে আমাকে এই অবস্থানগুলোতে নিয়ে আসেন।

আর সত্যি বলতে এই অর্জন বা সফলতা যেটাই বলি না কেন, এটা আমার একার না। আমার সঙ্গে প্রতিটা কাজে যুক্ত থাকা পরিচালক, প্রযোজক, সহশিল্পী, গল্পকার, চিত্রনাট্যকার, ক্যামেরাম্যান, লাইটম্যান, মেকাপম্যান, সম্পাদক, সঙ্গীত পরিচালক, প্রোডকাশন বয় থেকে থেকে শুরু করে সকলের, এ কৃতিত্ব দর্শকদের। এই সফলতার পেছনে শুধু আমার কষ্ট না, সবার কষ্টই জড়িত। বিশেষ করে আমার শুভাকাঙ্ক্ষী, দর্শকরা এতোটা সাপোর্ট ও ভালোবাসা না দিলে হয়তো আমি আজকে এ অবস্থানে আসতে পারতাম না।

আমি সবসময়ই চেষ্টা করেছি আমার দর্শকদেরকে ভালো কাজ উপহার দেওয়ার। একটা কাজ করার পেছনে অনেক অনেক শ্রম, সাধনা জড়িত থাকে। আর সেই কাজটা যখন দর্শকরা গ্রহণ করে, ভালোবাসা প্রকাশ করতে তখন সকল কষ্টই দূর হয়ে যায়। আমরা অভিনয়শিল্পী, দর্শকদের জন্যই কাজ করি। তাদের এ সাপোর্টটাই আমাদেরকে সবসময় ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা দেয়।

আসন্ন ঈদকে ঘিরে কি পরিকল্পনা করেছেন?

অপূর্ব: পরিকল্পনা বলতে এবার অনেক দেরি করে কাজে নামা হয়েছে, যার কারণে হয়তো খুব বেশি কাজ করা হবে না। এরমধ্যে যতটুকু সম্ভব করার চেষ্টা করব, অল্প কিছু কাজ করতে পারলেও খুশি। দেখা যাক কি হয়! গত ঈদে কাজগুলো থেকে ভালোই সাড়া পেয়েছি। এবার ঈদের জন্য ভালো কিছু গল্প খুঁজছি। ভালো গল্পেই কিছু করার চেষ্টা রয়েছে। এখন ভালো গল্প পাওয়াটাও তো খুব মুশকিল, আর মিলে গেলে তো খুবই ভালো।

অনেকেই ওটিটিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। এই মাধ্যমে আপনার ব্যস্ততা বাড়বে কবে?

অপূর্ব: ওটিটির বেশ কিছু কাজের কথা চূড়ান্ত হয়ে আছে। ৩টি প্লাটফর্মের ৩টি কাজ, যার মধ্যে দুইটি সিরিজ আর ১টি ওয়েব ফিল্ম। এখন আপাতত ঈদের আগে ওটিটি নিয়ে ভাবতে চাই না। এখন সময়টা নাটকের জন্যই রেখেছি। ঈদের আগে যে কয়েকটা কাজ করতে পারি, করবো। ঈদের পর ওটিটির কাজ শুরু করবো, এভাবেই প্লান করেছি।

অনেকের মতে, কাজের বিষয়ে আপনার আরও অনেক বেশি সিলেক্টিভ হওয়া প্রয়োজন। এই বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি?

অপূর্ব: আমি তো সবসময় মনোযোগ দিয়ে কাজটাই করছি। আমার কাছে যেসব গল্প, চরিত্র আসছে; সেগুলোর মধ্য থেকে বেছে বেছে ভালোটাই করার চেষ্টা করছি। গত ঈদে অনেক ভালো ভালো মন্তব্য পেয়েছি। দর্শকরা যখন কোন কাজ দেখে প্রশংসা করেন কিংবা সেটা নিয়ে মন্তব্য করেন; সেখানেই কিন্তু একজন শিল্পীর স্বার্থকতা। আমার কোন একটা কাজ যদি দর্শকের মনে ভালো লাগা তৈরি করে, তাদেরকে বিনোদন দেয় বা তাদের জীবন চলার পথে একটু হলেও কাজে আসে; তখনই কিন্তু একজন শিল্পী হিসেবে আমার প্রাপ্তি বা স্বার্থকতা। তবে আগামীতে চেষ্টা থাকবে আরও ভালো কিছু করার এবং সিলেক্টিভ হওয়ার।

আমি আসলে খুবই শান্তিপ্রিয় একজন মানুষ। আমি কখনোই এত হিসাব-নিকাশ করে চলিনি। মানুষ হিসেবে আমি এতটা প্রফেশনাল না, তবে একটু বেশি ইমোশনাল। আমার জন্য যারা করে, আমার যারা সত্যিকারের শুভাকাংখী, যারা আমাকে মন থেকে ভালোবাসে তাদেরকে তো আমি কখনও ভুলে যেতে চাই না, ছাড়তেও চাই না। হিসেব কষে জীবনে কখনও চলিনি আমি। আমার যেটা করতে ভালো লাগে, যেটা করে আমি আনন্দ পাই; আমি সেটাই করি।

দীর্ঘ একটা সময় ধরে এই ইন্ডাস্ট্রিতে আছি। এই পুরো সময়টাতে অনেক মানুষ আমার পাশে ছিলেন বিভিন্ন সময়ে, এখনও আছেন। আমার প্রতি তাদের দাবি আছে, তেমনি তাদের প্রতিও আমার দায়িত্ব আছে। স্বার্থপর হতে পারিনি বলে আমি সবসময় পুরো ইন্ডাস্ট্রিটাকে সঙ্গে করে নিয়ে একসাথে চলতে চেয়েছি। শুধু আমার নিজের জন্য কখনওই কিছু চিন্তা করিনি, করলে হয়তো ব্যাপারটা অন্যরকম হতো। খুব বেশি ইমোশনাল বলেই এই মানুষগুলোর ভরসা আমি নষ্ট করতে পারি না। আমার একটু ভালোর জন্য চাইলে অনেক কিছুই করতে পারতাম, অনেক অহংকার দেখাতে পারতাম। কিন্তু আমি শুরু থেকে সবসময়ই চেয়েছি ডাউন টু আর্থ থাকতে। আমি দেখেছি, আমার কিছু হলে এই মানুষগুলো আমার জন্য জান প্রাণ দিয়ে দেয়! এইগুলোর প্রতিদান আমি কি দিয়ে দেবো? প্রতিদানে আমি শুধু ভালোবাসাটাই দিতে জানি, পিঠ দেখাতে পারি না। আর আমি এমনটাই থাকতে চাই সবসময়।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত