ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে
শিরোনাম

এশিয়ান একাডেমি অ্যাওয়ার্ডস: ড্রামাতে রেদওয়ান রনি, ফিকশনে তাওকীর

  বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশ : ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৪:৩৩

এশিয়ান একাডেমি অ্যাওয়ার্ডস: ড্রামাতে রেদওয়ান রনি, ফিকশনে তাওকীর
বিনোদন ডেস্ক

পুরো এশিয়ার সিনেমা জগতের অন্যতম সম্মানজনক একটি পুরস্কার হলো এশিয়ান একাডেমি ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ডস। বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) জমকালো আয়োজনের মধ্যে দিয়ে সিঙ্গাপুরের বিখ্যাত সিজ ম্যাজ হলে বসবে অ্যাওয়ার্ডের এই আসর। তার আগে সকালে এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে আগত ন্যাশনাল উইনারদের নিয়ে প্যানেল ডিসকাসশন হয়েছে।

সেই প্যানেলে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন জনপ্রিয় পরিচালক ও চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি। ড্রামা প্যানেলের প্যানেললিস্ট হিসেবে ছিলেন তিনি। ড্রামা প্যানেল থেকে সিরিজ, ওয়েব সিরিজসহ নতুন উঠে আসা বিভিন্ন কনটেন্ট নিয়ে কথা বলেন তিনি। এছাড়া ভবিষ্যতে ওটিটি প্ল্যাটফর্মের অবস্থা কেমন হতে পারে, কি ধরনের কনটেন্টের বেশি চাহিদা হবে এসব বিষয়ে কথা বলেন রেদওয়ান রনি। ড্রামা প্যানেলে রেদওয়ান রনির সঙ্গে প্যানেলিস্ট হিসেবে ছিলেন জাপান থেকে প্রডিসার ডাইসুক কুসাগায়া (Daisuke Kusgay), মালয়শিয়া থেকে এসোসিয়েট ডিরেক্টর প্রোডাকশন ইমিল্লিয়া রসলান (Imillya Roslan), ফিলিপিন থেকে এক্সিকিউটিভ প্রডিসার ডনডন (Dondon), সিঙ্গাপুরের পরিচালক লী থিন-জীন (Lee Thean-Jeen)। আর এই প্যানেলে মডারেটর হিসাবে ছিলেন মানশা দাসওয়ানি (Mansha Daswani)।

অন্যদিকে বাংলাদেশ আরেক জনপ্রিয় পরিচালক মোহাম্মদ তাওকীর ইসলাম অ্যাওয়ার্ড সো'য়ের ডিরেকশন-ফিকশন প্যানেলের প্যানেলিস্ট হিসেবে ছিলেন। ‘শাটিকাপ’ খ্যাত এই পরিচালক ভবিষ্যতের ওটিটিতে ফিকশন গল্প কেমন হতে পারে, কোন ফিলশনের চাহিদা বেশি এসব নিয়ে আলাপ করেন। ফিকশন প্যানেলের তাওকীরের সঙ্গে প্যানেলিস্ট হিসেবে ছিলেন ভারতের পরিচালক বাসিল জোসেফ (Basil Joseph), জাপানের গেকিদান হিতরি (Gekidan Hitori), মালয়েশিয়ার ইউসরি আব্দুল হালিম (Yusry Abdul Halim), নিউজল্যান্ডের আইদি ওয়ালকার (Aidee Walkar) ও সিঙ্গাপুরের লী থিন-জীন (Lee Thean-Jeen)। আর এই প্যানেলে মডারেটর হিসাবে ছিলেন ভ্যারাইটি এশিয়ার মারকাস লিম (Marcus Lim)।

এই প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ এশিয়ান একাডেমি ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ডসে অংশ নেয়। ৩০ সেপ্টম্বর এশিয়ান একাডেমি তাদের ফেসবুক পেইজ থেকে লাইভের মধ্যে দিয়ে এ বছরের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ন্যাশনাল উইনার ঘোষণা করে। সেখান তিনটি ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের চরকি বিজয়ী হয়েছিল।

১। সেরা ফিচার ফিল্ম: খাঁচার ভেতর অচিন পাখি

২। সেরা ড্রামা সিরিজ: জাগো বাহে

৩। সেরা পরিচালক (ফিকশন): মোহাম্মদ তাওকীর ইসলাম, শাটিকাপ

এখন অপেক্ষা আজ সন্ধ্যার। বাংলাদেশের কারো হাতে কি উঠবে এই পুরস্কার? এশিয়ান একাডেমি ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ডে প্রত্যেক বছরের ডিসেম্বরে দেয়া হয় সিঙ্গাপুরে। এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ১৬টি দেশের চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন ইন্ড্রাস্টির শ্রেষ্ঠ কাজগুলোকে সম্মাননা দেয়। এশিয়ান একাডেমি ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ডে এই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের জন্য একটি বিরাট সাফল্য।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত