পশ্চিমবঙ্গে আটক ৬ বাংলাদেশি সাতদিনের পুলিশ হেফাজতে

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১২:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

  ময়ুখ বসু, কলকাতা

প্রতীকী ছবি

অবৈধভাবে ভারতে বসবাস করার অভিযোগে পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার ব্যান্ডেল থেকে আটক ৬ বাংলাদেশিকে সাতদিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে চুচুড়া আদালত। গত শুক্রবার রাতে তাদের আটক করে চন্দননগর কমিশনারেটের পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ভুয়া আঁধার ও প্যান কার্ডও তৈরির অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ বলছে, আটক হওয়ারা বেশ কিছুদিন আগে বাংলাদেশ থেকে বেআইনিভাবে ভারতে এসেছিলেন। ব্যান্ডেলের একটি  আবাসনে থাকতেন তারা। স্থানীয়রা তাদের আচরণ সন্দেহ করেন এবং পুলিশকে খবর দেন। গোপনে তাদের উপর নজরদারি চলতে থাকে। গত শুক্রবার রাতে ওই আবাসনে ব্যান্ডেল থানার নেতৃত্বে অভিযান চলে এবং তাদের আটক করা হয়।

দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা স্বীকার করে নেয়, তারা বাংলাদেশ থেকে বেআইনিভাবে ভারতে এসেছে। কেউ পেট্রাপোল, কেউ আগরতলা ও আবার কেউ ত্রিপুরা সীমান্ত দিয়ে ভারতে ঢুকেছে।

জানা গেছে, আটক ৬ জনের কেউ সাত থেকে আট মাস আগে, আবার কেউ দুই থেকে তিন মাস আগে বাংলাদেশি এজেন্টের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করে। আটকরা পুলিশের কাছে দাবি করেছে, দুবাইতে কাজ দেওয়ার নাম করে দালাল চোরাপথে তাদের পশ্চিমবঙ্গে এনেছে।

পুলিশ জানায়, আটক হওয়া ব্যক্তিরা হলেন- রুহুল আমিন ওরফে বিশ্বজিৎ মণ্ডল, সোহেল রানা ওরফে রতন মণ্ডল, মৃদুল ব্যাপারী ওরফে মৃদুল দাস, মিঠুন দাস ও তাপস দাস। দালালই তাদের ভারতের পরিচয়পত্র তৈরি করিয়ে দিয়েছিল। দুবাইতে চাকরি অথবা টাকা ফেরতের দাবি জানালে দালাল তাদের হুগলি, কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনায় কাপড়ের দোকান বা মুদিখানায় কাজে লাগিয়ে দেয়। তাদের ভারতীয় পরিচয়পত্র পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/ টিটি