বিশ্বে দৈনিক শনাক্ত ৭ লাখের নিচে

প্রকাশ : ০৫ এপ্রিল ২০২২, ০৯:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ লাখ ৯৩ হাজার ৬২৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ হাজার ৩২৫ জন। অর্থাৎ আগের চেয়ে অনেকটা কমে এসেছে সংক্রমণ- মৃত্যুর সংখ্যা।

সোমবার সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ কোরিয়ায়। গত ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণ কোরিয়ায় করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২১৮ জনের।

অন্যদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু দেখেছে রাশিয়া। এ দিন রাশিয়ায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২৮৭ জনের এবং দেশটিতে এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ২৯১ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসেব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার্স জানিয়েছে এসব তথ্য।

গত ২৪ ঘণ্টায় জার্মানিতে নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২২ হাজার ৬৫১ জনের ও মৃত্যু হয়েছে ১৫০ জনের। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ১৮০ জনের ও নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ১৪২ জন। ফ্রান্স মৃ্ত্যু হয়েছে ১৪৯ জনের ও নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ হাজার ৬৪৮ জন। ইতালিতে মৃত্যু হয়েছে ১২৫ জনের এবং নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ হাজার ৬৩০ জন। ভিয়েতনামে নতুন আক্রান্ত ৪৮ হাজার ৭১৭ জন ও মৃত ৪২ জন। একইদিন জাপানে নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ২৪২ ও মৃত্যু হয়েছে ৩৮ জনের।

ওয়ার্ল্ডোমিটার্সের তথ্য অনুযায়ী,  গত ২৪ ঘণ্টায় ১০ লাখ ৪৩ হাজার ৫২০ জন মানুষ করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অর্থাৎ, সোমবার দৈনিক আক্রান্তের তুলনায় সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৮৯৫ জন।

বিশ্বে বর্তমানে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ৫ কোটি ৮৫ লাখ ৮৬ হাজার ৭২৬ জন। এই রোগীদের মধ্যে করোনার মৃদু উপসর্গ বহন করছেন ৫ কোটি ৮৫ লাখ ৩১ হাজার ৩৩৯ জন এবং গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় আছেন ৩৮৭ জন।

মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৪৯ কোটি ২২ লাখ ৯০ হাজার ২৭৪ জন এবং এ রোগে মৃত্যু হয়েছে মোট ৬১ লাখ ৭৮ হাজার ৬৬৭ জনের। এছাড়া, এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ৪২ কোটি ৭৫ লাখ ২৪ হাজার ৯৮১ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে বিশ্বের প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি।

বাংলাদেশ জার্নাল/পিএল