ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : ৭ মিনিট আগে

ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পার্থ-অর্পিতা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০২২, ১৮:২৩  
আপডেট :
 ১৮ আগস্ট ২০২২, ১৮:৫০

ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পার্থ-অর্পিতা
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষক নিয়োগ (এসএসসি) দুর্নীতি মামলায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-র হাতে গ্রেফতার হওয়া রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এব‌ং তার ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে আরও ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিশেষ আদালত।

বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানায় আনন্দবাজার।

গত ৫ আগস্ট ইডি’র আবেদনে সাড়া দিয়ে পার্থ এবং অর্পিতাকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিশেষ আদালত। বৃহস্পতিবার তাদের জেল হেফাজতের মেয়াদ শেষে আদালতে পেশ করা হয়। আদালতে ইডি-র আইনজীবীরা জানান, পার্থ-অর্পিতার নামে নতুন করে বিপুল সম্পদের হদিস পেয়েছে ইডি। সেগুলির উৎসের সন্ধানে নামতে চাইছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কর্মকর্তারা। তার জন্য এই দু’জনকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন বলে পার্থ-অর্পিতার জেল হেফাজতের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেন তারা। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতেই ৩১ আগস্ট পর্যন্ত তাদের জেল হেফাজতের মেয়াদ বাড়িয়েছেন বিচারক।

এদিকে আদালতে পার্থর শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জামিন চেয়েছিলেন তার আইনজীবীরা। তবে সেই আবেদনে সাড়ো দেয়নি আদালত।

বৃহস্পতিবার পুলিশ ভ্যানে করে প্রথমে অর্পিতাকে কোর্টে নিয়ে যায় পুলিশ। তার কিছু সময় পরে একটি সাদা সুমো গাড়ি করে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে কোর্টে নিয়ে যাওয়া হয়।

পুলিশের গাড়ি থেকে নামানোর সময় সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা অর্পিতা, অর্পিতা বলে ডাকলেও, মুখ খোলেননি তিনি। মাথায় ওড়না জড়িয়ে, মুখে মাস্ক পরে দ্রুত গাড়ি থেকে নেমে যান তিনি।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার আদালতের প্রবেশপথে দাঁড়িয়ে পার্থ মন্তব্য করেন, ‘কেউ ছাড়া পাবে না, সময়ে সব কিছু প্রমাণ হবে।’ যদিও ‘কেউ’ বলতে কাদের ইঙ্গিত করলেন তা স্পষ্ট করেননি তিনি।

বৃহস্পতিবার ব্যাঙ্কশাল আদালতে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের আইনজীবীরা দাবি করেন, নতুন করে পার্থ-অর্পিতার প্রায় ১০ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, ভুয়া সংস্থা, ফার্ম হাউসের হদিশ পওয়া গেছে। যেখানে কালো টাকা সাদা হয়েছে বলে দাবি ইডির আইনজীবীদের।

আদালতে আইনজীবীরা জানান, ইডি’র তদন্তে উঠে এসেছে একাধিক নতুন তথ্য। আগেই পার্থ-অর্পিতার নামে ৫০টি ব্যাংক অ্যাকাউন্টের হদিশ পাওয়া গিয়েছিল। এবার নতুন করে আরও ১০টি অ্যাকাউন্টের হদিশ মিলেছে। সবমিলিয়ে ৬০টি অ্যাকাউন্টের খোঁজ মিলেছে। ইডির তদন্তে উঠে এসেছে ৩০টি ভুয়ো সংস্থার নাম। এছাড়াও উত্তর ২৪ পরগনায় একটি ফার্ম হাউসেরও হদিশ পাওয়া গিয়েছে। পিকনিক স্পট হিসেবে ব্যবহার হত সেটি। সেখানেও বিপুল টাকা লগ্নি করা হয়েছে বলে দাবি ইডির আইনজীবীদের।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত