ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ৩ মিনিট আগে
শিরোনাম

জাপোরিঝিয়া-খেরসনকে স্বাধীন ঘোষণা করলেন পুতিন

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:৫১

জাপোরিঝিয়া-খেরসনকে স্বাধীন ঘোষণা করলেন পুতিন
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ান ফেডারেশনের সঙ্গে যুক্ত করার প্রস্তুতি নেয়ার মধ্যেই জাপোরিজিয়া এবং খেরসন অঞ্চলকে স্বাধীন বলে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে জারি করা এক ডিক্রিতে এই ঘোষণা দেন তিনি।

এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

বৃহস্পতিবার রাতে নিজের প্রেসিডেন্শিয়াল ডিক্রিতে পুতিন বলেন, দক্ষিণ ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া এবং খেরসনে ‘আমি রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্ব এবং স্বাধীনতার স্বীকৃতির আদেশ দিচ্ছি’।

এদিকে রাশিয়ান ফেডারেশনে লুহানস্ক, দোনেতস্ক, খেরসন এবং জাপোরিঝিয়া অঞ্চলগুলোর প্রবেশ সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে শুক্রবার সভাপতিত্ব করবেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। রাশিয়ার স্থানীয় সময় শুক্রবার বিকেল তিনটায় গ্র্যান্ড ক্রেমলিন প্রাসাদের সেন্ট জর্জ হলে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ২০১৪ সালে ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়াও ঠিক এভাবেই দখল করেছিল রাশিয়া।

এর আগে চারদিন ধরে এই অঞ্চলগুলোতে রাশিয়ায় যোগ দেয়ার বিষয়ে গণভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে রাশিয়ায় যোগদানের পক্ষে ৯৯ শতাংশ পর্যন্ত ভোট পড়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। আর সেই ফলাফলের প্রেক্ষিতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে রাশিয়া। যদিও ইউক্রেন এবং পশ্চিমা দেশগুলো এই ভোটকে জাল, অবৈধ এবং অস্ত্রের মুখে পরিচালিত বলে আখ্যায়িত করেছে।

এদিকে, জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস নিউইয়র্ক সিটিতে সাংবাদিকদের বলেছিলেন যে চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ার সংযুক্তি জাতিসংঘের সনদের লঙ্ঘন করবে এবং এর কোন আইনি মূল্য নেই।

গুতেরেস রাশিয়ার পদক্ষেপকে ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া সংঘাতের ‘একটি বিপজ্জনক বৃদ্ধি’ হিসাবে বর্ণনা করেছেন যার আধুনিক বিশ্বে কোনও স্থান নেই।

অন্যদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বৃহস্পতিবার তার বক্তব্য পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে যুক্তরাষ্ট্র কখনই ইউক্রেনের ভূখণ্ডে রাশিয়ার দাবিকে স্বীকৃতি দেবে না।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়্যেপ এরদোগানও ইউক্রেনে উত্তেজনা কমাতে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে পুতিনকে চাপ দেন।

এছাড়াও, ইউক্রেন-সহ গোটা পশ্চিমা বিশ্ব রাশিয়ার এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করছে। রাশিয়ার এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি শুক্রবার তার জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা কাউন্সিলের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। এছাড়াও ইউক্রেনজুড়ে বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত