ঢাকা, শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শিরোনাম

পানির রঙ গোলাপি, রহস্যে ঘেরা লোনার হ্রদ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১৮:৫০  
আপডেট :
 ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১৬:২৯

পানির রঙ গোলাপি, রহস্যে ঘেরা লোনার হ্রদ
লোনার হ্রদ। ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশ্বে এমন অনেক হ্রদ, নদী রয়েছে যার রঙ নীল, সবুজ ইত্যাদি। কিন্তু হ্রদের পানি হঠাৎ করে গোলাপি হয়ে যায়—এমনটা দেখেছেন কখনও? সম্প্রতি এমন একটি ঘটনা আলোড়ন ফেলে দিয়েছে ভারতে। মহারাষ্ট্রের লোনার হ্রদের রঙ সবুজ থেকে বদলে হয়ে গিয়েছে গোলাপি। কিন্তু এমনটা হল কীভাবে? সেই প্রশ্নের উত্তর মেলেনি এখনও।

শোনা যায়, প্রায় ৫০ হাজার বছর আগে উল্কাপিণ্ডের আঘাতের ফলে সৃষ্টি হয়েছিল মহারাষ্ট্রের এই লোনার হ্রদ। তবে এত দিন পর্যন্ত এই হ্রদের পানির রঙ সবুজই ছিল। ফলে খুব একটা জনপ্রিয় ছিল না পর্যটকদের কাছে। কিন্তু রাতারাতি বদলে যায় লোনার হ্রদের পানির রঙ এবং সেই রঙ নীল বা স্বচ্ছ সবুজ নয়, হ্রদের পানি হয়ে যায় গোলাপি। আর এই ঘটনাই আলোড়ন ফেলে দেয় সামাজিক মাধ্যমে।

মুম্বাই থেকে প্রায় ৫০০ কিলোমিটার দূরে বুলধনা জেলায় অবস্থিত এই লোনার হ্রদ। সবুজ অরণ্যে ঘেরা এই হ্রদ বরাবরই একটি পর্যটন কেন্দ্র। কিন্তু তার জনপ্রিয়তা ভ্রমণপিপাসুদের মধ্যে সেইরূপে ছিল না। কিন্তু পানির রঙ হঠাৎ করে গোলাপি হয়ে যাওয়ায় পর্যটকদের ভিড় জমতে শুরু করেছে লোনার হ্রদে।

এই লবণাক্ত পানির হ্রদ এখন পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে বেশ জনপ্রিয়। কোভিড লকডাউনের সময় হঠাৎ করে লোনার হ্রদের পানির রঙ গোলাপি হয়ে যায়। এটা দেখতে পর্যটকদের ভিড় যেমন বাড়ে, তেমনই কীভাবে এমনটা হল তা নিয়ে দ্বন্দ তৈরি হয় বিজ্ঞানীদের মনে।

প্রথম দিকে, অনেকে ভেবেছিলেন পানির নীচে থাকা জলজ উদ্ভিদের কারণে হয়তো এমনটা ঘটেছে। আবার অনেকের মত, লকডাউনে দূষণ কমে যাওয়ার কারণেও এটা ঘটতে পারে। তবে এমনটা ঠিক কী কারণে ঘটল তা এখনও পর্যন্ত কেউ বরতে পরছে না। তবে এই হ্রদকে নিয়ে রহস্যের শেষ নেই।

প্রায় ১.২ কিলোমিটার বিস্তৃত এই হ্রদ আদতে লবণাক্ত পানির। কিন্তু পানির রঙ পরিবর্তনের পর এর স্বাদ আর লবণাক্ত নেই। বরং এখন এই হ্রদের দুই ধরনের অম্লত্বের পানি পাওয়া যায় এবং এই দুই পানি পরস্পর মিশ্রিতও হয় না। অন্যদিকে, এই হ্রদের মাটিতে যে ধরনের খনিজ পদার্থ পাওয়া যায় তার সঙ্গে মিল রয়েছে চাঁদের মাটিতে পাওয়া খনিজের। সুতরাং, লোনার হ্রদ প্রাকৃতিক রহস্যে ঘেরা একটি পর্যটন কেন্দ্র পরিণত হয়েছে।

সূত্র: টিভিনাইন

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত