ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯ আপডেট : ৪ মিনিট আগে

শিশুকে বইপ্রেমী করে তুলতে নিজে বই পড়ুন

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ২২ মার্চ ২০২২, ১০:৪৫  
আপডেট :
 ২৩ মার্চ ২০২২, ১৬:৫৮

শিশুকে বইপ্রেমী করে তুলতে নিজে বই পড়ুন
ছবি: সংগৃহীত
জার্নাল ডেস্ক

বর্তমান যুগে বেশিরভাগ মা-বাবারাই অফিসের কাজে ব্যস্ত থাকে। ফলে সন্তানদের তেমন সময় দিতে পারে না। সেক্ষেত্রে অনেক শিশুই মন খারাপ করে বা হতাশ হয়ে পড়ে। কিন্তু আপনার শিশুটির একা সময়টা যেন হতাশ না হয়ে বই পড়ে হাসি আনন্দে কাটে সেদিকে নজর দেয়া উচিত।

ইদানীং প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ায় প্রাপ্তবয়স্কদের দেখাদেখি শিশুরাও বই থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। পাঠ্যবইয়ের বাইরে অন্য বইগুলি পড়লে শিশুর জ্ঞানের ভাণ্ডার যেমন বাড়বে তেমনই তার কল্পনাশক্তিও বিকশিত হবে। স্মার্টফোন, কার্টুন আর মোবাইল গেমের কারণে অনেক শিশুর মধ্যে বই পড়ার অভ্যাস হারিয়ে যেতে বসেছে। আর দেরি না করে ছোট থেকেই আপনার সন্তানকে করে তুলুন বইপ্রেমী। জেনে নিন কিছু কৌশল যাতে আপনার সন্তান হয়ে উঠতে পারে বইপ্রেমী

নিজে নিয়মিত বই পড়ার অভ্যাস করুন

আপনি যা করবেন আপনার শিশুটিও তাই শিখবে। সারা দিনে একটি নির্দিষ্ট সময় বই পড়ার জন্য বরাদ্দ করুন। আপনাকে বই পড়তে দেখে আপনার শিশুও বই পড়তে উৎসাহিত হবে। শিশু খুব ছোট হলে প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে গল্পের বইটি মজার ছলে পড়ে শোনান। ছোট থেকেই সেই অভ্যাস তৈরি হয়ে গেলে বয়স বাড়ার সঙ্গে তার বইয়ের প্রতি আসক্তি আরও বাড়বে।

বই উপহার দিন

একটা সময় ছিল যখন জন্মদিনে বই উপহার দেয়ার চল ছিল। শিশুর জন্মদিনে বেশির ভাগ অভিভাবক এখন খেলনা উপহার দিয়ে থাকেন। তবে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে চাইলে ছোটবেলায় শিশুর জন্মদিনে বই উপহার দিন। এতে করে আপনার সন্তানও বুঝবে যে বই কতটা গুরুত্ব দিচ্ছেন আপনি। এবং ধীরে ধীরে তাদের মধ্যেও বইয়ের প্রতি ভালোবাসা তৈরি হবে।

সঠিক বই বাছাই করুন

অনেক সময় শিশুরা বই পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে কারণ বইগুলি তাদের বয়স উপযোগী হয় না। তাই কোন বইটি তাদের পক্ষে উপযোগী সেটা আপনাকেই বাছাই করতে হবে। শিশুর বয়স যদি চার-পাঁচ বছরের নীচে হয় তা হলে এমন বই কিনুন যেখানে একটি পৃষ্ঠায় তিন-চার লাইন করে থাকে। ছোট শিশুদের জন্য রঙিন বই কিনুন। বইতে অনেক ছবি থাকলে ভালো হয়, তাতে তাদের কল্পনা শক্তি বাড়বে।

শিশুর মনে প্রশ্ন জাগ্রত রাখুন

শিশুরা বয়সের সঙ্গে আশপাশের সব কিছু নিয়ে জানতে চায়। তার চোখে থাকে রাজ্যের বিস্ময়, মনে থাকে হাজার রকমের প্রশ্ন। তাদের প্রশ্নগুলির উত্তর আপনাকে বুদ্দিমত্তার সঙ্গে দিতে হবে। আপনি তার এই উৎসুক মনের সাহায্য নিয়েই তার সঙ্গে বইয়ের সম্পর্ক জুড়ে দিতে পারেন খুব ছোট বয়সেই!

তাদের লাইব্রেরিতে নিয়ে যান

আপনি যখন লাইব্রেরিতে যাচ্ছেন তখন আপনার শিশুকেও সেখানে নিয়ে যান। বিভিন্ন প্রকার বইয়ের সঙ্গে তাদের পরিচয় করান। কেবল গল্পের বই নয়, বিজ্ঞানভিত্তিক বইও তাদের বই পড়ার আগ্রহ বাড়াতে পারে।

একই গল্প বার বার পড়ে শোনান

আপনার শিশু যদি একই গল্প বার বার শুনতে চায়, তাহলে তাকে বাঁধা দেবেন না। এই পন্থায় তাদের স্মৃতিশক্তি বাড়বে। এতে তাদের শব্দ মুখস্থ করতে সুবিধা হবে, তাদের শব্দভাণ্ডার বাড়বে। খানিকটা গল্প বলে বাকিটা তাদেরকেই বলতে বলুন। দেখবেন তাদের গল্প শোনার ও পড়ার অভ্যাস দুই-ই বাড়বে।

বাংলাদেশ জার্নাল/পিএল

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত