ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে

আশিস সৈকতের ‘খবরের ভেতরের খবর’ অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার প্রামাণ্য দলিল

  তুহিন তৌহিদ

প্রকাশ : ২৯ মার্চ ২০২২, ১৭:৪৫

আশিস সৈকতের ‘খবরের ভেতরের খবর’ অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার প্রামাণ্য দলিল
তুহিন তৌহিদ

সাংবাদিক আশিস সৈকতের ‘খবরের ভেতরের খবর’ গ্রন্থটি পনেরোটি সাড়া জাগানো প্রতিবেদন দিয়ে গাঁথা। গ্রন্থটিতে তিনি এসব প্রতিবেদন লেখার প্রেক্ষাপট ও প্রতিক্রিয়া তুলে ধরেছেন। যা পড়তে গিয়ে কখনো চমকে উঠতে হয়। কার্যত অনুসন্ধানী সংবাদিকতার দিকে যারা অনুসন্ধিৎসু চোখ রাখছেন, বইটি তাদের জন্য দারুণ সহায়ক হতে পারে।

খবরের ভেতরের খবর আসলে কী? বইটিতে দেখা যায়, প্রত্যেকটি গুরুত্বপূর্ণ খবরের পেছনে চমৎকার কিছু ঘটনা সন্নিবেশিত রয়েছে। কখনো নিজে থেকে, কখনো সম্পাদকের পরামর্শে তিনি এসব প্রতিবেদন করেছেন। প্রায় প্রতিটি প্রতিবেদনই ছিল বেশ স্পর্শকাতর ও প্রভাব বিস্তারী, যা দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার প্রথম পাতায় প্রধান সংবাদ হিসেবে প্রকাশিত হয়েছিল।

প্রকাশিত এসব প্রতিবেদনের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে, ‘ল্যান্ড ক্রুজার ও প্রাডো সাংসদদের পছন্দ’। ২০১০ সালের ২ সেপ্টেম্বর প্রতিবেদনটি প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। খবরটি বেশ সাড়া ফেলেছিল। কারণ, এতে উঠে এসেছিল কীভাবে শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানির সুযোগ নিয়ে সাংসদরা ব্যয়বহুল ল্যান্ড ক্রুজার ও প্রাডো গাড়ি কিনছিলেন। এ সংবাদ প্রকাশের পর অবাধ শুল্কমুক্তিতে লাগাম টানে সরকার। তখন সংসদের স্পিকার ছিলেন অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ (বর্তমান রাষ্ট্রপতি)। তিনি সাংসদদের জন্য সর্বোচ্চ সিসি ও ব্রান্ডের নাম নির্ধারণ করে দেন, যা বর্তমান সংসদেও বহাল রয়েছে। এতে শুল্কমুক্ত সুবিধায় অতি দামি ব্রান্ডের গাড়ি কিনতে পারছেন না সাংসদরা।

‘সংসদের জন্য ছয়টি লিফট, স্পিকার জানেন না’ শিরোনামের প্রতিবেদন ৯ আগস্ট, ২০১০ সালে প্রকাশিত হওয়ার পর বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। এ লিফটগুলো জার্মানি থেকে কেনার কথা থাকলেও সেগুলো কেনা হয় কোরিয়া থেকে। বিষয়টি সম্পর্কে একেবারেই অবগত ছিলেন না স্পিকার আবদুল হামিদ (বর্তমানে রাষ্ট্রপতি)।

প্রতিবেদক আশিস সৈকতকে এ খবরের বিষয়ে জানিয়েছিলেন সংসদের একজন অফিস সহকারী। খবরটি জেনে আঁতকে উঠেছিলেন স্পিকার। তিনি বলেছিলেন, ‘সাংবাদিকরা জানে সংসদের জন্য লিফট কেনা হয়েছে, অথচ স্পিকার জানে না।। তাহলে তো ডাল মে কুছ কালা হ্যায়।’ এ ঘটনা নিয়ে তিনি কড়াকড়ি অবস্থানে যান।

২০০৭ সালের ১৯ ডিসেম্বরে দৈনিক প্রথম আলোয় প্রকাশিত হয়, ‘মির্জা আব্বাসের পেট্রল পাম্প দুর্নীতি: ১২ লাখ টাকার ইজারা হয়ে গেল ৯৩ লাখ’। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ‘সংসদ ভবনের পশ্চিম প্রান্তে আসাদ গেট-সংলগ্ন এলাকায় পূর্ত অধিদপ্তরের একটি পেট্রল পাম্প বরাদ্দের ব্যাপারে ক্ষমতার অপব্যাবহার করেছিলেন তৎকালীন পূর্তমন্ত্রী মির্জা আব্বাস। তার সময়ে নিয়ম লঙ্ঘন করে ওই পাম্পটি বছরে মাত্র ১২ লাখ টাকা হিসেবে ইজারা দেয়া হয় মন্ত্রীর ছোটভাই মির্জা খোকনের ব্যবসায়িক অংশীদার আহমেদ ইকবালের নামে।’ এ প্রতিবেদন প্রকাশের পরই তালুকদার নামের আরেক ব্যক্তিকে ইজারা হস্তান্তর করা হয়।

‘চিফ হুইপ বাসার জন্য চাল ডাল টাকা সবই নেন সংসদ থেকে’- প্রতিবেদনটিতে (প্রকাশকাল ১৩ মার্চ, ২০০৬) চিফ হুইপ খোন্দাকার দেলোয়ার হোসেনের প্রসঙ্গ উঠে আসে। এতে বলা হয়, ‘সংসদ থেকে এভাবে বাসায় খাবারের জন্য চাল-ডাল থেকে নগদ টাকা নেয়ার ঘটনা আগে কখনো ঘটেছে বলে শোনা যায়নি। এসব মালামাল ও টাকা নেয়া হয়েছে চিফ হুইপের একজন কর্মকর্তার সই করা ফর্দের মাধ্যমে।’ এ প্রতিবেদন প্রকাশের পর চিফ-হুইপ প্রতিবেদক আশিস সৈকতের বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন। মামলায় আরও আসামি করা হয়েছিল দৈনিক প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান ও সে সময়ে ওই দৈনিকের প্রকাশক মাহফুজ আনামকে।

বইটিতে আলোচিত অন্য প্রতিবেদনগুলো হলো- ‘দলীয় সফরে ঢাকার বাইরে যেতে সংসদ থেকে গাড়ির তেল নিয়েছিলেন তারেক’, ‘খালেদার পরিবারের হাতে ঘুরে পটলের হাতে মাতাসাগর’, ‘মন্ত্রীর বাড়ির সামনে শেষ হলো জেলা সড়ক’, ঘাস কাটতে কোটি টাকা স্পিকার জানেন না কিছুই কাজ পেয়েছেন বিএনপি নেতা’, ‘উত্তর-দক্ষিণ দুই ভাগ হচ্ছে ঢাকা সিটি করপোরেশন’, ‘বাংলাদেশের তাল পড়ে ভারতে’, অর্থনৈতিক মন্দার প্রভাব পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের দৈনিক পত্রিকাগুলোতেও’, ‘হাওর এলাকার জন্য দেড় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প’, ‘রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন নিয়ে বিভ্রান্তি’, ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার এম এ সাঈদের সাক্ষাৎকার’।

বইটির সবশেষে ‘প্রথম আলোকে শেখ হাসিনা: জলবায়ু সম্মেলনের পর সবার দৃষ্টি এখন বাংলাদেশের দিকে’ শিরোনামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি দীর্ঘ সাক্ষাৎকার রয়েছে, সাংবাদিক আশিস সৈকত সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন।

মূলত ‘খবরের ভেতরের খবর’ এমন একটি গ্রন্থ, যা অনুসন্ধানী রিপোর্টিংয়ে আগ্রহীদের কর্মক্ষেত্রে সহায়ক হিসেবে ভূমিকা রাখবে। তাদেরকে জানাবে যে, তারা কীভাবে এ ধরনের রিপোর্ট বের করে আনবেন এবং কিভাবে তা প্রতিবেদনে উপস্থাপন করবেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত