ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : ৪ মিনিট আগে

সাংবাদিক জুয়েলের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারে সাত দিনের আল্টিমেটাম

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০২২, ১৭:৩১

সাংবাদিক জুয়েলের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারে সাত দিনের আল্টিমেটাম
ছবি-নিজস্ব
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সদস্য ডিবিসি নিউজের অপরাধ বিষয়ক প্রতিবেদক সাইফুল ইসলাম জুয়েলের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। এ সময়ের মধ্যে মামলা প্রত্যাহার না করা হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) উদ্যোগে সাইফুল ইসলাম জুয়েলের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচিতে এ হুঁশিয়ারি দেন সাংবাদিক নেতারা।

সমাবেশে ক্র্যাব সভাপতি মির্জা মেহেদী তমাল বলেন, সাইফুল ইসলাম জুয়েলের ওপর হামলার মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে যে, ভিক্টর ট্রেডিং করপোরেশনের কাওসার ভুঁইয়া একজন খারাপ লোক। তিনি দুর্নীতি করলেন, সাংবাদিক পেটালেন আবার উল্টো মামলাও করলেন। মামলা করে তিনি ভাবছেন আমরা নেগোশিয়েট করতে যাব। আপনি জেনে রাখুন, আমরা কখনো আপনার কাছে যাবো না। আপনি মামলা তুলে নেন আর না নেন। আমরা রাস্তায় নেমেছি এর শেষ দেখে ছাড়বো। পুলিশ প্রশাসনকে বলতে চাই, কাওসার ভুঁইয়া তার ভাইকে দিয়ে যে মিথ্যা মামলা করিয়েছে সেই মামলায় যেন সাংবাদিক জুয়েল কোনরকম হয়রানির শিকার না হয়।

তিনি বলেন, আমরা সাত দিনের আল্টিমেটাম দিচ্ছি। এর মধ্যে এই মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। এছাড়া কাওসার ভুঁইয়াসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে যে মামলা করা হয়েছে সাত দিনের মধ্যে ওই মামলার চার্জশিট দিতে হবে। এর মধ্য দিয়ে কাওসার ভুঁইয়াকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনতে হবে। এছাড়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইন মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সব দপ্তরে স্মারকলিপি দেয়া হবে।

ক্র্যাবের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকু বলেন, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহর করা না হলে আরও কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। এ ধরনের মামলা সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধ করার শামিল। সরকারের এ বিষয়ে দৃষ্টি দেয়া উচিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকারের নানা উন্নয়নমূলক কর্মসূচি আমার জাতির সামনে তুলে ধরি। কিন্তু স্বাস্থ্যখাতের অনিয়মের সংবাদ তুলে ধরার চেষ্টা করায় সাইফুল ইসলাম জুয়েলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হলো, যা নিন্দনীয়। এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি অবিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান তিনি।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী বলেন, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা হামলা করে কেউ রেহাই পাবে না। অতীতে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে থেকেছি, সামনেও থাকবো। সাংবাদিকদের জন্য যে নতুন আইন হয়েছে তা সংশোধনের জন্য বলা হয়েছে। অচিরেই সরকার এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ডিইউজে সাবেক সভাপতি আবু জাফর সূর্য বলেন, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা করে তাদের কণ্ঠরোধ করা যাবে না। অতীতেও কেউ এসব করে পার পায়নি। আমরা বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের চেষ্টা করেছি। এটা অব্যাহত থাকবে।

সাংবাদিক জুয়েলের ওপর হামলা ও মামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু বলেন, স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতির অনুসন্ধান করায় সাইফুল ইসলাম জুয়েলের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। আবার উল্টো তার বিরুদ্ধে মামলা করা হলো। এটা অনাকাঙ্ক্ষিত। আমরা রাজপেথ আছি, থাকবো। আমাদের দাবি মানা না হলে প্রয়োজনে সাংবাদিকদের সব সংগঠন একত্রিত হয়ে আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

ক্র্যাব সভাপতি মির্জা মেহেদী তমালের সভাপতিত্বে ও দপ্তর সম্পাদক ইসমাঈল হুসাইন ইমুর পরিচালনায় সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ডিআরইউ সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম হাসিব, ক্র্যাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সারোয়ার আলম, ডিআরইউর সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ জামাল, ক্র্যাবের সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান, ক্র্যাবের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রুদ্র রাসেল, ডিআরইউর সাংস্কৃতিক সম্পাদক নাদিয়া শারমিন, রিপোর্টার্স এগেইনষ্ট করাপশনের (র‌্যাক) সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ক্র্যাবের সাবেক সভাপতি ইসারফ হোসেন ইসা, আবু সালেহ আকন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক দিপু সারোয়ার, ডিফেন্স জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের (ডিজাব) সভাপতি মামুনুর রশিদ, ক্র্যাবের অর্থ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মন্টু, কার্যনির্বাহী সদস্য সিরাজুল ইসলাম, সিনিয়র সদস্য ইকরামুল কবির টিপু, দেব দুলাল মিত্র, ডিআরইউ ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্যরা।

বাংলাদেশ জার্নাল/সুজন/এমএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত