সাদিয়া নাজিব-এর তিনটি কবিতা

প্রকাশ : ৩০ জুন ২০২২, ০০:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

  জার্নাল ডেস্ক

।। আগুনে অবগাহন।। 

মধু সন্ধানে  পিঁপড়ের মতো
সন্তর্পণে তোমার নাভি অতিক্রম শেষে 
অরণ্যে লুকিয়ে থাকা ঝর্ণায়
স্নান করি পূণ্য 
গঙ্গাজলে ও মেলে না
এই পবিত্রতা
কখনো হই দুর্ধর্ষ শিকারী
মৌ পানে
অসংযমী! 
নারী,
তোমার চোখের গভীর আহবান 
মগজে বুনো মোষ ক্ষেপিয়ে তোলে
নিতম্ব বেয়ে আসা
ভেজা চুল 
বুকে ঢালে আগুনের স্রোত 
মাতি আগুনে অবগাহনে
দুর্দম প্রনয়োল্লাসে 

আমি পোকার রাজ্যে  পিঁপড়ে হতে চাই
মনুষ্য রাজ্যে ব্যাধ
আর তোমার রাজ্যে ক্রীতদাস! 

।। কবি ।।

ক্যাপুচিনোর মগে লেপ্টে থাকা
টিস্যুটির মতো চুপিচুপি ঘামছি
স্নিগ্ধ ধোঁয়ায় মিশে যাচ্ছে কবিতার শব্দ,ছন্দ
অবনত চোখ তুলে দেখো না একবার
এ দু' চোখের প্রেম!
ছাইদানিতে জমছে কবিতার পাহাড় 
উঠবে কি তুমি সেই পাহাড় চূড়ায়?
তোমাকে বাধঁবো আমার কাব্যে,সুরে
বাঁধবো প্রচন্ড 
রেখাবে নিখাদে
সকল কোমলতায়।
ঐ চারুমুখে মেখো না মেঘের ছায়া
রংধনু মেয়ে একবার চোখে রাখো চোখ
পুড়ে যাচ্ছি নিঃশব্দে।
একবার এই ঠোঁটে রাখো ঠোঁট!

।। ধ্যানস্থ।।

ধোঁয়ায় ধোঁয়ায় মিশে যাচ্ছো তুমি নারী
প্রিয় রমণী আমার!
তামাক পোড়া ঠোঁট 
ছুড়ছে হাওয়ায় বৃত্ত মুহুর্মুহু
তুমি তার কেন্দ্রে ঘুরছো বিচিত্র ভঙ্গিমায়
নাচছো ত্রিতালে ছৌ!
কংক্রিটে ফুটছে দারুণ সব বোল
আঙুলের টোকায় টোকায়।
ফ্যাকাশে,ফাটাফুটা পুরনো জিন্সে
শিষ বাজাচ্ছে তুমুল প্রেম
আহা সুন্দরী! 
অন্তরে এ কি জ্বালা ঢেলেছো
বিবর্ণ ঠোঁট ব্যস্ত ব্যাকুল
জ্বালতে আগুনের ফুলকি
হাতরে মরে দিয়াশলাই 
তামাকের সাহচর্য 
আর
তোমার রাঙা ওষ্ঠের মতো
বিষাক্ত নীলাভ মদিরা..

বাংলাদেশ জার্নাল/কেএ