মৌসুমী আচার্য্য-এর তিনটি কবিতা

প্রকাশ : ৩০ জুন ২০২২, ০৩:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

  জার্নাল ডেস্ক

।। বৃষ্টি বিলাপ।।

ছবি আঁকতে আঁকতে তুলির গায়ে রঙ ধুতে ব্যবহার করা হয় যে জল,
ক্রমশ সে জলেও প্রকট কোন না কোন রঙ।
জীবনের আঁকে বাঁকে বলে চলা গল্পেরও থাকে নানা রঙ, 
ঈশ্বর  কখনো সখনো..
বৃষ্টির ধারায় সেই রঙ ভাসিয়ে দেন পথে ও প্রান্তে,
কি অবলীলায় তখন লোভী মুখের লালা,বীর্য সব মিলে মিশে ভেসে যায় চোখের জলের স্রোতে... 
এরপর তাতে যোগ হয় নর্দমার উপচে পড়া জল;
বৃষ্টি শেষে সোঁদা মাটির বুকে জমে থাকা জলকণার গায়ে, আবারো জেগে ওঠে নানা রঙের ছায়া
এ রঙ কি শুধু অতীতের আভা,না কি নতুন দিনের গল্প ,
নাকি শুধুই কবিমনের বৃষ্টি ছুঁতে না পারার বিলাপ।

।। আলেয়া।।

কতো রঙ এই শহরে
সাজোয়া বাতির রঙ, ঝাড়বাতির রঙ
রঙিন কাগজে মোড়ানো আলোর রঙ,
রঙ মশালের রঙ
হাজারো রঙের ভিড়ে মানুষ খুঁজে ফিরে মনের রঙ
খুঁজতে খুঁজতে সকাল গড়িয়ে দুপুর হয়,বিকেল হয়
তারপর সন্ধ্যা আসে
শহর সেজে ওঠে রঙিন আলোয়,
বিবর্ণ মন আবারো খুঁজে ফিরে রঙের হদিস
সাজানো ঐ রঙগুলো কি সত্যি আলো ? নাকি আলেয়া.......?

।। ক্ষণিষ্ণুকাল।।

প্রতিদিন পাওয়া না পাওয়ার হিসেব মেলাতে মেলাতে
 ক্ষতবিক্ষত হয় আত্মা,
করপোরেট লালসা কিনে নিতে চায় মনের স্বাধীনতা, 
দাসত্বের বেড়ি পরাতে চায় পায়ে,
আর অতিমারী তো সেই কবে থেকেই কেড়ে নিয়েছে বেঁচে থাকার আনন্দ।
তবুও ফুল ফোঁটে, 
আর মানুষ  বিদ্ধস্ত হতে হতেও একটু একটু হাসে,
ধুঁকতে ধুঁকতে ভালোবাসে।


বাংলাদেশ জার্নাল/কেএ