ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৩ মিনিট আগে
শিরোনাম

পল্টনেই সমাবেশ করতে চায় বিএনপি, বিকল্প প্রস্তাবও ভাববে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:২৮  
আপডেট :
 ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২২:৩১

পল্টনেই সমাবেশ করতে চায় বিএনপি, বিকল্প প্রস্তাবও ভাববে
সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল। সংগৃহীত ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

আগামী ১০ ডিসেম্বর পল্টনেই শান্তিপূর্ণভাবে গণসমাবেশ করতে চায় বিএনপি। তবে প্রশাসন গ্রহণযোগ্য অন্য কোনো প্রস্তাব দিলে ভেবে দেখবে দলটি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা পল্টনেই শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করতে চাই। শান্তিপূর্ণ সমাবেশের ব্যবস্থা করার দায়িত্ব সরকারের, অন্যথায় এর দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমস্যাটা কোথায় এমন প্রশ্নের উত্তরে বিএনপি মহাসবিচ বলেন, এখানে চারদিকে দেয়ালে ঘেরা। আর অইখানে এত সব স্থাপনা যে সমাবেশের সুযোগ নেই। বড় সমাবেশ করার উপযোগী নয়।

ফখরুল বলেন, গতকাল নয়াপল্টনে যে ঘটনা ঘটিয়েছে এটা গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক মারার শামিল। আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়ে গণ আন্দোলনের ভীত হয়ে দেশকে পুলিশে রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। নয়া পল্টন থেকে অবিলম্বে পুলিশ হত্যার করতে হবে এবং সেখানে সমাবেশ করার পরিবেশ ও তৈরি করতে হবে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, আমরা নয়াপল্টনের সমাবেশ করার কথা বলেছি এবং সরকারের কাছে বলেছি বিকল্প কোনো ভিন্ন থাকলে সেটা আমাদেরকে বলুন সেটা যদি আমাদের কাছে গ্রহণযোগ্য হয় তাহলে আমরা বিবেচনা করব।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালে প্রিন্স, বিএনপি নেতা সিরাজুল ইসলাম, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়ায় উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার ও শায়রুল কবির খান প্রমুখ।

নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরাকরের দবিতে গত ৮ অক্টোবর থেকে বিএনপি বিভাগীয় শহরগুলোতে ধারাবাহিক যে সমাবেশ করছে, তার শেষ কর্মসূচি হিসেবে রাজধানীর এই জমায়েতের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

আগের সমাবেশগুলো নির্বিঘ্নে হলেও রাজধানীর সমাবেশস্থল নিয়েই তৈরি হয়েছে বিরোধ। বিএনপি সেদিন জমায়েত হতে চায় নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ের সামনে। কিন্তু পুলিশ অনুমতি দিয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে, যেখানে যেতে আপত্তি আছে দলটির।

নয়াপল্টন না পেলে আরামবাগে অনুমতি দিতে বিএনপির মৌখিক অনুরোধ মৌখিকভাবেই ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে বুধবার বিএনপির পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে জানানো হয়েছে, গ্রহণযোগ্য বিকল্প স্থানের প্রস্তাব দেয়া না হলে সমাবেশ হবে নয়াপল্টনেই।

সেদিন দলের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপি যেখানে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছে, সেখানেই হবে সমাবেশ। গ্রহণযোগ্য বিকল্প প্রস্তাব করতে চাইলে সেটা করতে করতে হবে আওয়ামী লীগ ও সরকারকেই। তিনি এও বলেন, ‘পুলিশের কাজ পুলিশ করবে, বিএনপির কাজ বিএনপি।’

আরো পড়ুন: আজও ফখরুলকে কার্যালয়ে যেতে দেয়নি পুলিশ

বাংলাদেশ জার্নাল/এএইচ/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত